৬ বছরেও হাজেরার ভাগ্যে জুটেনি সরকারি ঘর

তাজুল ইসলাম মিয়াজী,বিডিপ্রেস এজেন্সি,নাঙ্গলকোট,কুমিল্লা : কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে ৬ বছরেও ভাগ্যে জুটেনি তিন সন্তানের জননী হাজেরা বেগমের বসবাস করার মত একটি সরকারী ঘর। হাজেরা বেগম নাঙ্গলকোট পৌরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের চৌগুরী উত্তর পাড়া গ্রামের সালাউদ্দিনের স্ত্রী। সালাউদ্দিন চট্টগ্রামে একটি কারখানায় শ্রমিকের কাজ করেন।

যে বেতন পান, তা দিয়ে সংসার চালাতে হিমসিম খাচ্ছে তিনি। তার ১ ছেলে ও ২ মেয়েসহ ৫ সদস্যের পরিবারের বোঝা বহন করতে হচ্ছে হাজেরা ও তার স্বামী সালাউদ্দিনকে। বসতবাড়ীর দেড় মতক জায়গা ছাড়া সহায় সম্বল বলতে আর কিছুই নেই। বড় মেয়ে দায়েমছাতী স্কুলের শিক্ষার্থী। ছোট ছেলে একটি এতিমখানায় লেখা পড়া করছে। বসতবাড়ীর ঘরটিও বসবাসের অনুপযোগী।

অর্থের অভাবে মেরামত করতে পারছেন না। ঝড়বৃষ্টি হলে ঘরে পানি পড়ে ও যে কোন সময় ঘরটি ভেঙ্গে গিয়ে বড় ধরনের দূর্ঘটনা হতে পারে। একটি সরকারী ঘর বরাদ্দ চেয়ে গত ৬ বছরে জন প্রতিনিধিদের কাছে বহু আবেদন নিবেদন করেছেন, কিন্তু কোন কাজ হয়নি হাজেরা বেগম আরও বলেন- প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক অসহায় মানুষকে ঘর দিয়েছে।

এলাকার জনপ্রতিনিধিদেরকে টাকা দিতে না পারায় সরকারী ঘর ভাগ্যে জুটেনি ও সমাজপতির কাছে অনেক কান্না করেও বসবাস করার মত একটি ঘরের ব্যবস্থা হচ্ছে না। এখন শেষ ভরসা প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা, অর্থ মন্ত্রী, আ,হ,ম, মুস্তফা কামাল লোটাস কামাল,উপজেলা চেয়ারম্যান, সমাজপতিদের কাছে বসবাস করার মতো একটি ঘরের ব্যবস্থা করে দেয়।

বিডিপ্রেস এজেন্সি/টিআই

আরও পড়ুন...