স্কুল-কলেজ খুললে কোন শ্রেণীর কতদিন ক্লাস হবে?

বিডিপ্রেস এজেন্সি ডেস্ক : দীর্ঘ দিনের প্রতীক্ষা কাটিয়ে অবশেষে আসছে মার্চ মাসের ৩০ তারিখ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। পর্যায়ক্রমে খোলা হবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো । ৫ম, ১০ম ও ১২শ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্লাস প্রতিদিন হবে।

আর অন্যন্য শ্রেণির ক্লাস প্রথমে সপ্তাহে একদিন হবে। পরে তা দুই দিন হবে। আর পর্যায়ক্রমে স্বাভাবিক কার্যক্রম শুরু হবে। আর প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণির ক্লাস শুরু হলেও প্রাক প্রাথমিক শ্রেণির ক্লাস শুরু হচ্ছে না।

মন্ত্রী জানান, পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে ৫ দিনের প্রতিদিন ক্লাস হবে। ১ম থেকে চতুর্থ সপ্তাহে ১দিন করে ক্লাস হবে। প্রাক প্রাথমিককে এখন স্কুলে আনা হবে না, তাদের কবে আনা হবে তা পরে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও জানান, দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির ক্লাস হবে সপ্তাহে ৬ দিন। নবম ও একাদশ শ্রেণির ক্লাসও অন্যান্য শ্রেণির চেয়ে বেশি হবে। প্রথমে সপ্তাহে ২ দিন করে। কেননা তাদের সামনে পরীক্ষার বিষয় থাকবে। আর ষষ্ঠ, সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণি সপ্তাহে ১দিন করে ক্লাস হবে। পরে এই ক্লাসের সংখ্যা বাড়বে। টিকার কারণে সংক্রমন একদম কমে এলে ২ সপ্তাহ পরেই আমরা স্বাভাবিক কার্যক্রমে চলে যাব। আর যদি সংক্রমন না কমে তাহলে যতদিন ঝুঁকি থাকবে তা বিবেচনায় নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তিনি বলেন, ৩০ মার্চ থেকে ৫ম, ১০ম ও ১২শ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্লাস প্রতিদিন হবে। আর অন্যন্য শ্রেণির ক্লাস প্রথমে সপ্তাহে একদিন হবে। পরে তা দুই দিন হবে। ৬০ কর্মদিবস ক্লাস হওয়ার পরেই এসএসসি পরীক্ষার অনুষ্ঠিত হবে। ৬০ দিন ক্লাসের পর শিক্ষার্থীরা ২ সপ্তাহ সময় পাবেন প্রস্তুতির জন্য।

মন্ত্রী জানান, ৩০ মার্চ থেকে ৫ম, ১০ম ও ১২শ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্লাস প্রতিদিন হবে। আর অন্যন্য শ্রেণির ক্লাস প্রথমে সপ্তাহে একদিন হবে। পরে তা দুই দিন হবে। আর পর্যায়ক্রমে স্বাভাবিক কার্যক্রম শুরু হবে। আর প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণির ক্লাস শুরু হলেও প্রাক প্রাথমিক শ্রেণির ক্লাস শুরু হচ্ছে না।

তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খোলার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। আমরা ৩০ মার্চের মধ্যে শিক্ষক কর্মচারীদের টিকার আওতায় নিয়ে আসবো।

মন্ত্রী আরও বলেন, ১০ম ও ১২শ শ্রেণির ক্লাস সপ্তাহে ছয় দিন হবে। বাকি শ্রেণির ক্লাস প্রথমে সপ্তাহে একদিন হবে। পরে সপ্তাহে দুই দিন হবে। পর্যায়ক্রমে শিক্ষার্থীদের স্বাভাবিক কার্যক্রম শুরু হবে।

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমরা যখনই শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলি এরপর ৬০ কর্মদিবস ক্লাস হয়েই এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

বিডিপ্রেস এজেন্সি/আই

আরও পড়ুন...