সকল তামাকপণ্যে সুনির্দিষ্ট কর বাস্তবায়ন ও উচ্চহারে কর আরোপ করা হচ্ছে

বিডিপ্রেস এজেন্সি ডেস্ক : আসছে ২০২১-২২ অর্থবছরের জাতীয় বাজেটে, সিগারেটসহ সকল তামাকপণ্যে সুনির্দিষ্ট কর বাস্তবায়ন এবং উচ্চহারে কর আরোপের মাধ্যমে অতিরিক্ত ৩ হাজার ৪০০ কোটি টাকা রাজস্ব আয়ের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে প্রায় ১১ লাখ প্রাপ্তবয়স্ক ধূমপান ছাড়তে উৎসাহী হবে এবং ৪ লাখ তরুণের অকাল মৃত্যু রোধ সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

সোমবার (১২ এপ্রিল) জাতীয় রাজস্ব ভবন কার্যালয়ে এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিমের সাথে ‘বাংলাদেশ পার্লামেন্টারি ফোরাম ফর হেলথ এন্ড ওয়েলবিং’ শীর্ষক সংসদীয় ফোরামের মধ্যকার আলোচনায় এসব তথ্য জানা যায়। এ সময় ফোরামের পক্ষ হতে কর বৃদ্ধির কয়েকটি প্রস্তাবনা পেশ করা হয়।

বৈঠকে এনবিআর চেয়ারম্যানের নিকট সকল তামাকপণ্যে সুনির্দিষ্ট করারোপের সুপারিশ জানিয়ে ৫২ জন এমপি স্বাক্ষরিত একটি চিঠির অনুলিপি ফোরামের পক্ষ হতে হস্তান্তর করেন অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত এমপি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফোরামের সচিবালয় সংস্থা স্বাস্থ্য সুরক্ষা ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক ডা. নিজাম উদ্দিন আহমেদ এবং পরিচালক রফিকুল ইসলাম। এছাড়াও চিঠির অনুলিপি ওয়াহিদা রহমান চৌধুরী, কমিশনার বৃহৎ করদাতা ইউনিট মূল্য সংযোজন কর এবং মো. মাসুদ সাদিক, ভ্যাট পলিসি জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এর কাছে পৌঁছানো হয়।

বৈঠকে অধ্যাপক ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত এমপি বলেন, ‘সিগারেট ও অন্যান্য তামাকজাতপণ্য দেশের যুবসমাজের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। তরুণ সমাজকে মাদকাসক্ত হওয়া থেকে বাঁচাতে বাংলাদেশকে তামাকমুক্ত করা জরুরি। এই লক্ষ্যে তামাকপণ্যে উচ্চহারে কর বৃদ্ধি এবং তামাক আইন সংশোধনের মাধ্যমে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে।’

বিডিপ্রেস এজেন্সি/জান্নাতুল মুক্তা

আরও পড়ুন...