শেরপুর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নৌকার প্রার্থী নেই

বিডিপ্রেস এজেন্সি,বগুড়া : বগুড়ার শেরপুর উপজেলা পরিষদের উপ নির্বাচনে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নৌকা মার্কার কোন প্রার্থী নেই। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কার্যালয়ে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মাহবুব আলম শাহ প্রতিদ্বন্দ্বী চার প্রার্থীর মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেন যেখানে কোন প্রার্থীই নৌকা প্রতীক দাবী করেনি বলে জানা যায়। বিগত ২১মার্চ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. খাদিজা বেগমের মৃত্যুতে এই পদটি শুন্য হয় বলে জানান উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোছা. আছিয়া খাতুন ।

আগামী ১০ ডিসেম্বর বগুড়ার শেরপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান (সংরক্ষিত মহিলা) পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যে নির্বাচনী তফসীল অনুযায়ী বগুড়ার শেরপুর উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে চার প্রার্থীর মাঝে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। তবে স্থানীয়ভাবে বিএনপি-জামায়াত তথা চার দলীয় জোট মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতিক বরাদ্দ দিলেও বর্তমান ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ তাদের দলীয় প্রার্থী মনোনয়ন দিতে ব্যর্থ হওয়ায় বেশ আলোচনা-সমালোচনার ঝড় উঠেছে রাজনৈতিক অঙ্গনে। অবশ্য এর আগে সাবেক মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান হিসেবে আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে ফিরোজা খাতুনকে দেয়া হলে তিনি নির্বাচিত হয়েছিলেন।

উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের শূন্যপদের উপ-নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ পাওয়া প্রার্থীরা হলেন, বিএনপি দলীয় মনোনিত প্রার্থী মোছা. নাছরিন আক্তার (ধানের শীষ), স্বতন্ত্র প্রার্থী মোছা. শিল্পী বেগম (কলস), মোছা. ফিরোজা খাতুন (ফুটবল) ও মোছা. নাজনীন পারভীন (পদ্মফুল)। প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পরপরই প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু করেছেন। এই উপ-নির্বাচনে বিএনপির পক্ষ থেকে দলীয় প্রার্থী দেয়া হলেও ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে কোন প্রার্থী দেয়া হয়নি। তবে বগুড়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মজিবর রহমান মজনুর সহধর্মিনী শিল্পী বেগম স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

প্রথমদিন বিকেল থেকেই পৌরশহর-উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে শুভেচ্ছা বিনিময় ও ভোট প্রার্থণা করেন তারা। পাশাপাশি মাইক যোগে ও চলছে প্রচারণা। ইতিমধ্যে পোষ্টার সাটানোর কাজও চলছে সমানতালে। তাই দু-একদিনের মধ্যেই পোস্টারে পোস্টারে ছেয়ে যাবে গোটা উপজেলা। এদিকে বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের কারণে বড় সভা-সমাবেশ ও মিছিল-মিটিংয়ের পরিবর্তে ভোটারদের নির্বাচনমুখি করতে এবং কাছে টানতে নানা কৌশল অবলম্বন করছেন প্রার্থীরা। বিশেষ করে ডিজিটাল প্রচারণার দিকে বেশি নজর দিয়েছেন তারা।
এক্ষেত্রে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম (ফেসবুক) প্রচারণাকে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছেন প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা। এছাড়া উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব জানে আলম খোকার ছোট বোন নাজনীন পারভীনও স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করছেন। তাই প্রার্থীদের নিয়ে চা-স্টলসহ সর্বত্রই চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। নির্বাচন নিয়েও চলছে নানা হিসাব-নিকাশ। সবমিলে এবারের এই উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের নির্বাচন বেশ জমে উঠবে বলেও ধারণা করা হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোছা. আছিয়া খাতুন জানান, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ১০ডিসেম্বর এই উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তাই নির্বাচন কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী ভোটগ্রহণের যাবতীয় প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। এই নিবাচনে উপজেলার মোট ২লাখ ৬৫হাজার ৮৮১জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন। এরমধ্যে পুরুষ ১লাখ ৩০হাজার ৪৮জন এবং ১লাখ ৩৫হাজার ৮৪০জন নারী ভোটার রয়েছেন। বিগত ২১মার্চ উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছা. খাদিজা বেগমের মৃত্যুতে এই পদটি শুন্য হয় বলে জানান এই নির্বাচন কর্মকর্তা।

বিডিপ্রেস এজেন্সি/আইজেএস

আরও পড়ুন...