লঞ্চে আগুন : দায়িত্বে অবহেলার দায়ে ঝালকাঠির সিভিল সার্জন ওএসডি

বিডিপ্রেস এজেন্সি ডেস্ক : সুগন্ধা নদীতে বরগুনাগামী এমভি অভিযান-১০ যাত্রীবাহী লঞ্চে আগুন লেগে হতাহতের ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে ঝালকাঠির সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমার ঢালীকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি (ওএসডি) করা হয়েছে। রবিবার স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব জাকারিয়া পারভীন ওএসডির আদেশ প্রদান করেন। এ সংক্রান্ত আদেশ ঝালকাঠিতে সোমবার সন্ধ্যায় সিভিল সার্জন কার্যালয়ে আসার পরে জানা যায়।

তিনি ৪ জানুয়ারি ঝালকাঠি ত্যাগ করবেন বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন কার্যালয়ের জুনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা কর্মকর্তা গৌতম কুমার দাস। ৫ জানুয়ারি রতন কুমার ঢালী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে যোগদান করবেন বলে তিনি জানিয়েছেন। তবে ওএসডি’র কারন তিনি এড়িয়ে যান। ঘটনার দিন তিনি কোথায় ছিলেন সে প্রশ্নের জবাবও তিনি দেননি।

বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার সাইফুল হাসান বাদল ঝালকাঠি সিভিল সার্জনকে লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের পর তলব করেও পাননি বলে জানিয়েছেন ঝালকাঠি স্বাস্থ্য বিভাগের একটি সূত্র।

গত ২৩ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার রাত সারড় ৩ টা থেকে পরদিন শুক্রবার সকাল ৭ টা পর্যন্ত লঞ্চে দগ্ধ ৭০ জন যাত্রীকে ঝালকাঠি সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়। ঝালকাঠিতে বার্ণ ইউনিট না থাকায় সদর হাসপাতালে ১৫ জন রেখে অন্যদের বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডের সময় সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমার ঢালী ঝালকাঠিতে ছিলেন না। তিনি তাঁর স্ত্রীর কর্মস্থল পিরোজপুরে অবস্থান করছিলেন বলে তখন জানিয়েছিলেন ঝালকাঠি সিভিল সার্জন কার্যালয়ের ইপিআই সুপারিনটেনডেন্ট জিকে মতিয়র রহমান সিকদার। পিরোজপুরে তাঁর অবস্থানের সময় তিনি ছুটি নেননি বলেও জানিয়েছেন তাঁর কার্যালয়ের একটি সূত্র।

এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন ডা. রতন কুমার ঢালী বলেন, আমাকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের যোগদানের চিঠি এসেছে। আমি নির্দেশনা অনুযায়ী যোগদান করব। এর বাইরে আপাতত কিছু আমার জানা নেই।

বিডিপ্রেস এজেন্সি/টিআই

আরও পড়ুন...