লকডাউনের দ্বিতীয় দিনেও পাল্টায়নি চুয়াডাঙ্গার চিত্র

ছবি: বিডিপ্রেস এজেন্সি। 

সুজিত সাহা,বিডিপ্রেস এজেন্সি,চুয়াডাঙ্গা : মহামারী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ মোকাবিলায় সরকারের দেওয়া ৭ দিনের লকডাউনের ২য় দিনেও পাল্টায়নি চুয়াডাঙ্গার চিত্র। বিধিনিষেধ থাকলেও তা মানছে না অনেকেই। বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়ছে মানুষের সংখ্যা। মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) জেলা শহরের বিভিন্ন মার্কেট-বিপনী,অলিগলি ও কাঁচা বাজার ঘুরে দেখা গেছে বেশ কিছু দোকান একপাল্লা খুলে বেচাকেনা করছে।

ছবি: বিডিপ্রেস এজেন্সি।  

শুধু বাস বন্ধ দেখা গেছে। অন্য সব যান স্বাভাবিক নিয়মেই চলেছে। সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী, উন্মুক্ত স্থানে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য ও কাঁচাবাজার ছাড়া বন্ধ থাকার কথা সব দোকানপাট ও বিপণিবিতান। এরপরও অনেক স্থানে দেখা গেছে দোকান খুলতে। অলিগলির ভেতরের প্রায় সব দোকানই খোলা সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার কোনো বালাই নেই সেখানে।

ছবি: বিডিপ্রেস এজেন্সি।  

এদিকে, লকডাউন পরিস্থিতি নিয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আমজাদ হোসেন করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে বাধ্যতামূলক স্বাস্থ্য বিধি প্রতিপালন এবং গণসচেতনতা বৃদ্ধির জন্য শহরের বিভিন্ন স্থানে মোবাইল কোর্ট পরিচালিত করেন।

ছবি: বিডিপ্রেস এজেন্সি।  

মাস্ক ব্যবহার না করায় মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ৫ জনকে ১৭০০ টাকা জরিমানা করা হয়। ম্যাজিস্ট্রেট আমজাদ হোসেন জানান, কোন হোটেলে বসে খেতে দিচ্ছি না। চায়ের দোকানসহ আড্ডার জায়গা যেসব আছে সেগুলো বন্ধ আছে। আমরা সর্বাত্মকভাবে চেষ্টা করছি লকডাউনের সুফল জনগণকে বুঝানোর আর যারা মাস্ক ব্যবহার করছে না তাদেরকে মাস্ক দেয়া হচ্ছে।

বিডিপ্রেস এজেন্সি/জাসিফ আয়মান

আরও পড়ুন...