মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশী সানার সফল উদ্যোক্তা হয়ে ওঠার গল্প

ছবি : সানা বিনতে রহমান।

বিডিপ্রেস এজেন্সি,মালয়েশিয়া : বাংলাদেশের পুরান ঢাকার মেয়ে সানা বিনতে রহমান সফলতার সাথে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন মালয়েশিয়াতে। একজন উদ্যোক্তা হিসেবে নিজের তৈরীকৃত ভেষজ উপাদান দ্বারা প্রস্তুতকৃত স্কিনকেয়ার সামগ্রী নিয়ে কাজ করছেন। ত্বকের যত্নের জন্য নিজের তৈরী ভেষজ গুণ সমৃদ্ধ প্রোডাক্ট সফলতা এনে দিয়েছে সানার জীবনে।

বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান সানা বিনতে রহমান। জন্মস্থান রাজধানীর পুরান ঢাকায়। শৈশব-কৈশোর পরিবারের সাথে ঢাকাতেই কেটেছে তার। ২০০৬ সালে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন বিক্রমপুরের মালয়েশিয়া প্রবাসী এসএম নিপুর সাথে। বিয়ের পর প্রবাসী স্বামীর সাথে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমান এই উদ্যোক্তা এবং সফল ব্যবসায়ী।

মালয়েশিয়াতে সানা বিনতে রহমান ইউনিভার্সিটি টেকনোলজি অব মালয়েশিয়া (ইউটিএম) থেকে ২০১১ সালে ফ্যাশন বিএসসি ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ের উপর তিন বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা শেষ করেন। এরপর ২০১৪ সালে বোট্যানিকাল অর্গানিক স্কিন কেয়ার কনসালটেন্সির ওপর দুই বছর মেয়াদী আরও একটি ডিপ্লোমা সফলতার সাথে সম্পন্ন করেন।

ছবি : সানা বিনতে রহমান।

সানা বিনতে রহমান বিয়ের পর ২০০৬ সাল থেকে স্বামী নিপুর সাথে প্রায় ১৫ বছর যাবত মালয়েশিয়াতে অবস্থান করছেন।মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুর শহরে সানা-নিপু দম্পতির বর্তমান নিবাস।

স্বামী এবং তিন সন্তান নিয়ে পরিবারের পাশাপাশি সানা নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন একজন সফল ব্যবসায়ী হিসেবে বোট্যানিকাল অর্গানিক স্কিন কেয়ার কনসালটেন্সির উপর নিজের করা ডিপ্লোমা কাজে লাগিয়ে কাজ করছেন ভেষজ উপদানে তৈরী স্কিন কেয়ার প্রোডাক্ট নিয়ে। সানার তৈরী প্রোডাক্ট এর গুণগত মানের কারণে খুবই অল্প সময়ের মধ্যে নিয়ে এসেছে ব্যপক সফলতা।

বৈশ্বিক মহামারী কোভিড-১৯ এর কারণে সারা বিশ্বে যখন স্থবিরতা বিরাজ করছিলো ঠিক সেই মূহুর্তে শখের বশেই ব্যবসা শুরু করেন সানা। লকডাউনের কারণে গৃহবন্দী জীবনের একঘেয়েমিতা থেকে বেরিয়ে আসতে কাজ শুরু করেন নিজের অর্জিত জ্ঞানের ব্যবহারিক প্রয়োগ নিয়ে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে খুলে ফেলেন 'সানা বিউটি' নামে একটি পেজ৷ এরপর আর পিছু ফিরে তাকাতে হয়নি এই উদ্যোক্তা এবং সফল ব্যবসায়ীর। পরিবার সামলয়ে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন একজন পুরোদস্তুর ব্যবসায়ী হিসেবে।

সানা বিউটি কোম্পানির প্রোডাক্ট।

বিগত ৪ বছর ধরে ভেষজ উপাদান দিয়ে নিজেই তৈরি করছেন ত্বকের জন্য বিভিন্ন সামগ্রী। তার তৈরি করা সামগ্রীগুলো হলো উপটান, বডি স্ক্র্যাব, বডি মাস্ক, হেয়ার পেক, টনিক, ক্রিম , সিরাম নানা ধরনের স্কিন প্রোডাক্ট।

সানা বিউটি সম্পর্কে জানতে চাইলে সানা বলেন, ‘আমি নিজেই বিভিন্ন ভেষজ উপাদান দিয়ে এই স্কিন কেয়ার প্রোডাক্টগুলো তৈরি করে থাকি। এগুলো আমাদের ত্বকের জন্য অনেক উপকারী। আমার তৈরি স্কিনের প্রোডাক্টগুলো ইতোমধ্যেই মালয়েশিয়াতে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। মালয়েশিয়ার বিভিন্ন জায়গা থেকে অর্ডার আসে। এছাড়াও আমি আমার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে অনেককেই স্কিন অ্যাডভাইস দিয়ে থাকি। আমি চাই, আমার প্রোডাক্টগুলো বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে দিতে, আমি এখন সেই লক্ষ্যেই কাজ করে যাচ্ছি।

প্রবাসী বাংলাদেশীদের কাছে সানার স্কিন কেয়ার প্রোডাক্টগুলো ইতিমধ্যে বেশ জনপ্রিয়তা কুড়িয়েছে। অনেক প্রবাসী বাংলাদেশী তার প্রস্তুতকৃত সামগ্রী ব্যবহার করে উপকৃত হয়েছেন।মালয়েশিয়ার বিভিন্ন শহর থেকে প্রোডাক্ট অর্ডার পেয়ে থাকেন সানা৷ প্রোডাক্ট বিক্রির পাশাপাশি সানা তার ফেসবুক পেজের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরণের ত্বকের যত্নের পরমার্শ দিয়ে থাকেন বিনামূল্যে।

বর্তমানে সানা তার প্রোডাক্ট এর গুণগত মান উন্নয়ন নিয়ে কাজ করছেন। বিশ্বের প্রতিটি প্রান্তের মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিচ্ছে।তার প্রস্তুতকৃত স্কিন কেয়ার সামগ্রী। দেশকে ফুটিয়ে তুলতে চান বিশ্ব দরবারে।

প্রবাসীদের অনুপ্রেরণায় নতুন উদ্যোমে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছেন সানা। এব্যাপারে তিনি বলেন, 'প্রতিটি মানুষ চায় ভালো থাকুক, সুস্থ থাকুক, নিজের রূপ-সৌন্দর্য ধরে রাখুক। প্রবাসীদের ভালোবাসায় আরও সামনে এগিয়ে যেতে চাই।

সর্বশেষ বৈশ্বিক মহামারী কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহবান জানিয়েছেন সফল উদ্যোক্তা সানা বিনতে রহমান।

বিডিপ্রেস এজেন্সি/টিআই

আরও পড়ুন...