ব্রাক্ষণবাড়িয়ায় ট্রলারডুবিতে ২২ জনের মৃত্যু, আটক ৫

মুহাম্মদ মহসিন আলী,বিডিপ্রেস এজেন্সি,ব্রাক্ষণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার লইসকা বিলের নৌকাডুবির ঘটনায় এপর্যন্ত ২২ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। শনিবার (২৮ আগস্ট) সকাল পৌনে ১০ টার সময় উদ্ধার হল নাশরা (৩) নামের এক কন্যা শিশু লাশ। নিহত নাশরা ব্রাহ্মণবাড়িয়া শহরের পৈরতলা এলাকার হারিছ মিয়ার মেয়ে।

নাশরার চাচা মাসুদ মিয়া মরদেহ সনাক্তের পর বলেন, গতকাল সকালে নাশরা তার চাচা ফারুক মিয়ার শ্বশুরবাড়ি বিজয়নগর উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের নোয়াগাঁও গ্রামে বেড়াতে যায়। বিকেলে বাড়ি ফেরার সময় ফারুক ট্রলারের ছাদে ছিল। নাশরা ও তার চাচি কাজল বেগম বসে ছিল ট্রলারের ভেতরে। ফারুক সাঁতরে তীরে উঠতে পারলেও কাজল বেগম মৃত অবস্থায় উদ্ধার হয়। নাশরাকে অনেক চেষ্টা করার পরও তখন খুঁজে পাওয়া যায়নি।

মর্মান্তিক এ নৌকা ডুবির ঘটনায় বিজয়নগর থানায় সাত জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ এপর্যন্ত পাঁচ জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা হলেন জমির মিয়া (৩৩) পিতা-আলী আফজল, মো: রাসেল (২২) পিতা-মৃত আব্দুল করিম, খোকন মিয়া (২২) পিতা-মো: কাশেম মিয়া, মো: সোলায়মান (৬৪) পিতা-মৃত আশরাফ আলী, সাং-শোলা বাড়ি (কটাইল্যা পাড়া), ইউনিয়ন-পানিশ্বর, থানা-সরাইল, মিস্টু মিয়া (৬৭) পিতা-মৃত হাজী তালেব হোসেন, পত্তন ইউনিয়নের কালারটেক এলাকার বিজয়নগর জেলা-ব্রাহ্মণবাড়িয়া কে গ্রেফতার করা হয়।

নৌকাডুবির ঘটনায় আর কেউ নিখোঁজ নেই বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস কর্তৃপক্ষ। শনিবার বিকেল পোনে ৫টার দিকে উদ্ধার অভিযান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সহকারী পরিচালক আখতারুজ্জামন বলেন, নৌকাডুবির ঘটনায় আর কেউ নিখোঁজ নেই। তবে কেউ যদি দাবি করেন তাদের স্বজন এখনো নিখোঁজ আছেন, সে ক্ষেত্রে আমরা আবারও উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করবো। এজন্য ঘটনাস্থলে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল মোতায়েন রয়েছে বলে তিনি জানান।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জেলা প্রশাসক হায়াত উদ-দৌলা খান জানিয়েছেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নৌকা ডুবির ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রুহুল আমিনকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তারা ১০ কর্মদিবসে প্রতিবেদন দাখিল করবে বিআইডব্লিউটি এ’র উদ্ধারকারী দল ডুবন্ত নৌকাটিকে উদ্ধারের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। তবে কতক্ষণ নাগাদ উদ্ধার হবে, সেটি স্পষ্ট করে বলা যাচ্ছে না।

বিডিপ্রেস এজেন্সি/অনিকেত আহসান

আরও পড়ুন...