নাসুম-মুস্তাফিজের কারিশমায় ৯৩ রানেই থমকে গেল নিউজিল্যান্ড

বিডিপ্রেস এজেন্সি ডেস্ক : প্রথম ম্যাচে ৬০ রানে অল-আউট হবার পর দ্বিতীয় ম্যাচে ঘুরে দাঁড়ায় নিউজিল্যান্ড। তৃতীয় ম্যাচে তো হারিয়েই দেয় বাংলাদেশকে। দারুণভাবে সিরিজে ফেরা কিউইরা চতুর্থ ম্যাচে নেমেছে সমতায় ফিরতে।

বিকেলে টস জিতে বাংলাদেশকে বোলিংয়ের আমন্ত্রণ জানান সফরকারী অধিনায়ক টম ল্যাথাম। ব্যট করতে নেমে শুরু হতাশার। নাসুম আহমেদের করা ইনিংসের প্রথম ওভারেই রাচীন রবীন্দ্রকে ফেরান শূন্য রানে।

দ্বিতীয় ওভার করতে আসা সাকিবের ওভারে ফিন অ্যালেনের সুইচ হিটে ছক্কা মেরে ভয় ধরিয়ে দেন ফিন অ্যালেন। দ্বিতীয় ওভার বল করতে এসে তাকেও ফেরান নাসুম আহমেদ। অ্যালেন ফেরেন ১২ রান করে।

এরপর প্রায় সাত ওভার উইকেট শূন্য থাকার পর ১১তম ওভারের তৃতীয় বলে টম ল্যাথামকে ফেরান শেখ মেহেদী। ২১ রান করা ল্যাথাম ৩৫ রানের জুটি গড়েন উইল ইয়ংকে সঙ্গে নিয়ে।

ল্যাথামের বিদায়ের পরের ওভারেই নাসুমের তোপের মুখে পড়ে কিউইরা। ওভারের দ্বিতীয় বলে হ্যানরি নিকলকে ১ ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে শূন্য রানে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগান।

এর আগে গত অস্ট্রেলিয়া সিরিজে ১৯ রানে ৪ উইকেট নিয়ে করা ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ের রেকর্ড ভাংলেন আজ কিউইদের বিপক্ষে ১০ রানে ৪ উইকেট নিয়ে।

১৬তম ওভারের দ্বিতীয় বলে টম ব্লান্ডেলকে (৪) ফিরিয়ে এই ম্যাচে প্রথম উইকেট নেন মোস্তাফিজুর রহমান। একই ওভারের শেষ বলে বোলিং করে দুর্দান্ত এক ক্যাচ নেন দ্য ফিজ। কোল ম্যাককনিককে শূন্য রানেই ফিরিয়ে দেন সাজঘরে।

এদিকে ১৪তম ওভারের সময় নিজের দ্বিতীয় ওভারের শেষ বলে আগুলে ব্যথা পেয়ে মাঠ ছাড়লেও খানিক বাদে ফিরে আসেন সাইফউদ্দিন। নিজের তৃতীয় ওভারে তুলে নেন আজাজ প্যাটেলের উইকেট।

তবে উইল ইয়ংয়ের একার লড়াইয়ে সব উইকেটে হারিয়ে ১৯.৩ ওভারে ৯৩ রান সংগ্রহ করেছে কিউইরা। ইয়ং করেছেন ৪৬ (৪৮) রানে।

বাংলাদেশের পক্ষে ৪টি করে উইকেট নিয়েছেন নাসুম ও মোস্তাফিজ। ১ উইকেট করে নিয়েছেন সাইফউদ্দিন ও শেখ মেহেদী।

বিডিপ্রেস এজেন্সি/এনআই

আরও পড়ুন...