‘নারী সাংবাদিক গ্রেপ্তার সম্পর্কে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বক্তব্য গ্রহণযোগ্য নয়’

বিডিপ্রেস এজেন্সি ডেস্ক : বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেছেন, জ্যেষ্ঠ নারী সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে নির্যাতন, নিগ্রহ ও মামলার ব্যাপারে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বক্তব্য অনভিপ্রেত ও অগ্রহণযোগ্য। সরকারের রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ও গোপনীয় ডকুমেন্টস বা ফাইল কোনো একান্ত সচিবের টেবিলে অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে থাকে না। এটা হয়ে থাকলে সেটা বরং মন্ত্রণালয়েরই অযোগ্যতা ও ব্যর্থতা।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দৈনিক প্রথম আলোর জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা ও মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তারের প্রতিবাদ এবং তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ঢাকা মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতিবাদ সমাবেশে ভিডিও কলে যুক্ত হয়ে রাশেদ খান মেনন এসব কথা বলেন। রোজিনা ইসলামকে সচিবালয়ের কক্ষে আটকে রেখে নির্যাতন ও তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা এবং কারাগারে পাঠানোর নিন্দা জানান মেনন।

রোজিনা ইসলাম ইস্যুতে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে মেনন বলেন, মন্ত্রী প্রকারান্তরে দেশে দুর্নীতিবাজ ব্যবসায়ী-আমলাদের যে অশুভ আঁতাত গড়ে উঠেছে, তার পক্ষেই সাফাই গেয়েছেন। অথচ দেশবাসী জানে এই করোনাকালে সরকারি অর্থ নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে কী পরিমাণ দুর্নীতি আর লুটপাট হয়েছে। আর রোজিনা ইসলাম সেই সত্যকে তার অনুসন্ধিৎসু রিপোর্টের মাধ্যমে তুলে ধরছিলেন। আর এ কারণেই তাকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের আক্রোশের শিকারে পরিণত হতে হয়েছে।

তিনি বলেন, সংবাদপত্র ও সাংবাদিকের স্বাধীনতা ও পেশাগত অধিকার অক্ষুণ্ণ রাখতে রোজিনা ইসলামের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার ও তাকে মুক্তি দিতে হবে। একই সঙ্গে যেসব আমলা-কর্মচারী তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্চিত করেছেন, তাদেরও শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। ওই আমলাদের দিয়ে গঠিত তদন্ত কমিটি ও তার টার্মস অ্যান্ড রেফারেন্সও অগ্রহণযোগ্য।

ওয়ার্কার্স পার্টির ঢাকা মহানগর সভাপতি আবুল হোসাইনের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন- ঢাকা মহানগর সাধারণ সম্পাদক কিশোর রায়, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জাকির হোসেন রাজু, মোস্তফা আলমগীর রতন, অ্যাডভোকেট জোবায়দা পারভীন, গার্হস্থ্য নারীশ্রমিক নেত্রী মুর্শিদা আখতার নাহার, নারী মুক্তি সংসদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক শিউলী সিকদার, যুবনেতা মোতাসিম বিল্লাহ সানি, সাংবাদিক হুমায়ুন মুজিব, ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি কাজী আব্দুল মোতালেব জুয়েল প্রমুখ।

বিডিপ্রেস এজেন্সি/আই

আরও পড়ুন...