তবে কী ফেঁসে যাচ্ছেন পরীমণি?

বিডিপ্রেস এজেন্সি ডেস্ক : চিত্রনায়িকা পরীমনিকাণ্ডে ঢাকা বোট ক্লাবের ভেতরের আরও একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। ১০ সেকেন্ডের ভিডিওটির একপর্যায়ে ব্যবসায়ী নাসির ইউ মাহমুদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করতে দেখা যাচ্ছে পরীমনিকে। নতুন ওই ভিডিওটি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী পর্যবেক্ষণ করছে।

গত ৯ জুন মধ্যরাতের বোট ক্লাবের ঘটনার চারদিন পর ফেসবুকে স্ট্যাটাস ও সংবাদ সম্মেলন করে পরীমনি ওই রাতের ঘটনার যে বর্ণনা দিয়েছিলেন, এখন তার সেই বক্তব্যের সঙ্গে অনেক কিছুই মিল পাওয়া যাচ্ছে না বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র।

মামলার এজাহারে পরীমনি অভিযোগ করেছিলেন, ঘটনার দিন রাতে নাসির ও অমি মদ্যপান করার জন্য তাকে জোর করেন। মদ পান করতে না চাইলে নাসির জোর করে তার মুখের মধ্যে মদের বোতল প্রবেশ করিয়ে মদ খাওয়ানোর চেষ্টা করেন।

তবে নতুন প্রকাশ হওয়া ভিডিওতে সেরকম কোনো দৃশ্য দেখা যায়নি। বরং পরীমনি ক্লাবের ভেতরে সবার সঙ্গে স্বেচ্ছায় মদ্যপান করছেন এমন দৃশ্য উঠে এসেছে। সঙ্গে ছিলেন অমি ও জিমি।

ভিডিওতে আরও দেখা গেছে, উত্তেজিত পরীমনিকে শান্ত করার চেষ্টা করেন ব্যবসায়ী নাসির ইউ মাহমুদ। তার জবাবে নাসির মাহমুদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন ঢালিউড নায়িকা। উল্টো নাসিরকে বেরিয়ে যেতে বলেন তিনি।

এছাড়া বোট ক্লাবের ঘটনার আগের রাতে গুলশানের অল কমিউনিটি ক্লাবে পরীমনির ভাঙচুর ও বার-কর্মীদের মারধরের ঘটনাটিও বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করে। বনানীর একটি ক্লাবেও ভাঙচুরের অভিযোগ উঠে পরীমনির বিরুদ্ধে।

সবকিছু মিলে পরীমনির অভিযোগগুলো কতটা বিশ্বাসযোগ্য তা নিয়ে বিভিন্ন মহলে প্রশ্ন উঠেছে। এছাড়া প্রকৃত ঘটনা আড়াল করে পরীমনি ধর্ষণচেষ্টার মিথ্যা অভিযোগ করেছেন কিনা তা খতিয়ে দেখছেন তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, গত ৯ জুনের ঘটনায় ঢাকা বোট ক্লাবের সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে। সেই রাতে বোট ক্লাবে দায়িত্বপালনকারী সব স্টাফদের সঙ্গে কথা বলা হয়েছে। সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ ও স্টাফদের বক্তব্যের সঙ্গে পরীমনির অভিযোগের কোনো সাদৃশ্য পাওয়া যায়নি।

বরং ক্লাবের স্টাফরা তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের জানিয়েছেন, পরীমনি তার সঙ্গীরাসহ রাতে ওই ক্লাবে গিয়ে স্বেচ্ছায় টেবিলে বসে খোশগল্প করতে করতে মদ পান করেন। প্রায় ঘণ্টা খানেক পর একটি ব্লু-লেভেল বিদেশি মদের বোতল নেওয়া নিয়ে সেখানে প্রথমে উচ্চবাচ্য হয়। পরে সেটি হাতাহাতিতে রূপ নেয়।

তদন্ত সূত্র আরও জানায়, তারা ইতোমধ্যে ওই রাতের ঘটনার সময়ের খণ্ডিত কয়েকটি ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করেছেন। এর মধ্যে একটিতে খোদ পরীমনি নাসিরকে গালাগাল করছেন এমন দৃশ্য দেখা গেছে।

এ বিষয়ে পরীমনি গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘কয়েক সেকেন্ডের বিভ্রান্তিকর অস্পষ্ট ক্লিপ নয়, আমি পুরো ভিডিওটি চাই। শুরু থেকেই বলে আসছি, ক্লাবের ভেতরের সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ করার জন্য। যদিও কয়েক সেকেন্ড পাওয়া যায়, তাহলে নিশ্চয়ই পুরো ফুটেজই আছে। আমি সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করে আবারও বলছি, দয়া করে পুরো ফুটেজ প্রকাশ করুন। সবাই সত্যটা জানুক কী ঘটেছে সেই রাতে।’

বিডিপ্রেস এজেন্সি/টিআই

আরও পড়ুন...