কাশ্মীরের স্বর্গীয় সৌন্দর্য ‘ক্ষয়ে’ যাওয়ার কারণ

বিডিপ্রেস এজেন্সি ডেস্ক : প্রাকৃতির অনাবিল সৌন্দর্য কাশ্মীরকে রুপ দিয়েছে ভূস্বর্গের৷ কিন্তু নির্বিচারে বন ধংস, অবৈধ স্থাপনা আর দশক ধরে চলা সহিংসতার প্রভাব পড়ছে কাশ্মীরের নয়নাভিরাম সৌন্দর্যে৷ এ সৌন্দর্য ধরে রাখতে লড়েও যাচ্ছেন কেউ কেউ৷

পর্যটকদের খামখেয়ালি

সৌন্দর্য উপভোগ করতে এসে অনেক পর্যটক নষ্ট করেন প্রকৃতির শোভা৷ পর্যটনস্থানগুলোতে দেখা যায় পর্যটকদের ফেলে যাওয়া ময়লার ছড়াছড়ি৷

প্রাণিকূলের হুমকি

পর্যটক টানতে পাহাড়ের পাদদেশে গড়ে তোলা হয়েছে তাঁবু৷ তবে বনের এতে কাছে মানুষের উপস্থিতি হুমকিতে ফেলছে এলাকার জীববৈচিত্র্যকে৷

অনিয়ন্ত্রিত স্থাপনা

পর্যটকদের জন্য তৈরি হওয়া হোটেল-মোটেল দখল করে নিচ্ছে বন-জঙ্গল, অর্থাৎ বন্য প্রাণীদের আবাস৷

এগিয়ে আসছেন তরুণরা

প্রকৃতির এ ক্ষয় ঠেকাতে এগিয়ে এসেছে তরুণরা৷ কাশ্মীরের হিমালয় সংলগ্ন পাহালগাম এলাকার তরুণরা উদ্যোগ নিয়েছেন পরিবেশের ক্ষতি এড়িয়ে পর্যটন শিল্পকে এগিয়ে নেওয়ার৷

পাহাড় বেয়ে ময়লা সংগ্রহ

পাহালগাম এলাকার বাসিন্দা ট্রেকিং গাইড সারতাজ আহমাদ মাগরে স্থানীয় তরুণদের নিয়ে নেমে পড়লেন কাজে৷ পর্যটকদের ফেলে যাওয়া আবর্জনা সংগ্রহ করতে কখনো কখনো তিন হাজার মিটার উঁচুতেও উঠতে হয় তাদের৷

অবৈধ স্থাপনা ঠেকাতে সফল সংগ্রাম

পাহাড়ি এলাকায় নির্মিত স্থাপনার বিরুদ্ধে সংগ্রাম করছেন মোস্তাক পাহালগামি নামের এক পরিবেশকর্মী৷ তাঁর আন্দোলেনের ফলে কর্তৃপক্ষ স্থাপনাগুলোকে বেড়া দিয়ে ঘিরে রাখার সিদ্ধান্ত নেয়৷ ফলে অবৈধ বসতি স্থাপন কমে এসেছে বলে দাবি মোস্তাকের৷তথ্যসূত্র- ডয়েচে ভেলে বাংলা।

বিডিপ্রেস এজেন্সি/সাব্বির

আরও পড়ুন...